শনিবার, ২২ Jul ২০১৭ | ৭ শ্রাবণ ১৪২৪ English Version

আন্তর্জাতিক

লখনউয়ের কিং জর্জ হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ড, ছয় রোগীর মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: ভারতের উত্তরপ্রদেশের লখনউয়ের কিং জর্জ হাসপাতালে গতকাল সন্ধ্যায় অগ্নিকাণ্ডে ৬ জন রোগীর মৃত্যু হয়েছে। ট্রমা সেন্টার থেকে অন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে ওই ছয় রোগীর মৃত্যু হয়েছে। রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ ঘটনাক তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। গতকাল সন্ধ্যায় হাসপাতালের ট্রমা সেন্টারের দ্বিতীয় তলে আগুন লাগে। এরপর ধোঁয়ায় পুরো হাসপাতালে ছড়িয়ে পড়ে। ধোঁয়ায় রোগীদের শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। তাঁদের কোনওরকমে হাসপাতাল থেকে বের করে আনা হয়। চার ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে দমকল বাহিনী। সরকারি আধিকারিকরা জানিয়েছে, সম্ভবত শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত যন্ত্রে শর্ট সার্কিট থেকেই আগুন লেগে যায় সাত তলার ওই ভবনে। এই অগ্নিকাণ্ডের পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের গাফিলতি নিয়ে বহু প্রশ্ন উঠেছে। যখন আগুন লেগেছিল তখন ট্রমা সেন্টারে ৩০০ রোগী ভর্তি ছিলেন। তাঁদের মধ্যে ৩৭ জন ভেন্টিলেটরে ছিলেন। আগুন লাগার পরই রোগীদের সেখান থেকে বের করে আশেপাশের আটটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিন দিনের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, কিং জর্জ হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ড এর আগেও ঘটেছে। কিন্তু গতকালের ঘটনা থেকে স্পষ্ট, অতীতের ভুল থেকে শিক্ষা নেয়নি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

ব্রিটেন থেকে সাইকেলযোগে হজে যাচ্ছেন তিন বাংলাদেশি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: সিরিয়ার যুদ্ধবিধ্বস্ত মানুষের সাহায্যার্থে এ বছর সাইকেলযোগে আট ব্রিটিশ নাগরিক হজে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এদের মধ্যে আছেন বাংলাদেশের তিন বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ। এরইমধ্যে যাত্রা শুরু করে দিয়েছেন এই আট যুবক। জানা গেছে, এর মাধ্যমে এক মিলিয়ন পাউন্ড সংগ্রহ করতে চান দাতব্য সংস্থা হিউম্যান এইডের এসব সদস্য। এই আট যুবক ব্রিটেন থেকে শুরু করে সাইকেলে ভ্রমণ করবেন ফ্রান্স, জার্মানি, সুইজারল্যান্ড, ইতালি, গ্রিস। এর পর গ্রিস থেকে জাহাজে করে মিসর এবং সেখান থেকে সৌদি আরব। আগস্টে ঠিক সময়ের মধ্যেই তারা সৌদি আরব পৌঁছাবেন বলে আশা করা হচ্ছে। যদিও তারা তুরস্ক, সিরিয়া ও জর্ডান হয়ে সৌদি আরব যেতে চেয়েছিলেন। কিন্তু নিরাপত্তার কারণে তাদের সে পরিকল্পনা বাদ দিতে হয়েছে।

মার্কিন সিনেটে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসনের প্রস্তাব দাখিল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটের ‘হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভ’ এ প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিকভাবে অভিশংসনের প্রস্তাব দাখিল করা হয়েছে। ‘গুরুতর অপরাধ ও অসদাচরণ’ এর অভিযোগ এনে ডোমোক্রেটিক দলের কংগ্রেস সদস্য ব্র্যাড শারম্যান এবং অ্যাল গ্রেন এই প্রস্তাব আনেন। অভিশংসনের প্রস্তাবনায় বলা হয়, মে মাসে এফবিআই ডিরেক্টর জেমস কমিকে বরখাস্ত করে ট্রাম্প নির্বাচনে রুশ সংশ্লিষ্টতার বিচার প্রক্রিয়ায় বাধা সৃষ্টি করেন। গত মাসে সিনেটের শুনানিতে জেমস কমি বলেছেন, তাকে ব্যক্তিগতভাবে মাইকেল ফ্লিন সম্পর্কে তদন্ত বাদ রাখতে বলেছিলেন ট্রাম্প। প্রতিনিধি পরিষদের কাছে লেখা এক আর্টিকেলে শারম্যান লিখেছেন, এই ঘটনা শপথ ভঙ্গ ও সাংবিধানিক দায়িত্ব লঙ্ঘন। ট্রাম্প বিচার বর্হিভূত কাজ করেছেন। তাই মার্কিন আইন মোতাবেক এটি অভিশংসন ও বিচারের দাবি রাখে। তবে অভিশংসনের এই প্রস্তাবনা পাশ না হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। কারণ বর্তমান কংগ্রেসে রিপাবলিকানরাই সংখ্যাগরিষ্ঠ। রিপাবলিকান আইনপ্রণেতারা ট্রাম্পের বিরুদ্ধে আনীত অভিশংসন প্রস্তাব নাকচ করে দিবেন। শারম্যান বলেন, রিপাবলিকানরা এতে একমত না হলেও এটি মনে রাখতে হবে যে, সব কিছুর উর্ধ্বে জাতীয় স্বার্থ। আমাদের অবশ্যই সামনে এগিয়ে যেতে হবে। অবিলম্বে ইমপিচমেন্ট না হলেও সিনেট হোয়াইট হাউসের বিষয়ে হস্তক্ষেপ ও অনিয়ন্ত্রিত বিষয়গুলো সমাধান করতে উৎসাহিত হবে।’ হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র সারাহ হাকবি স্যান্ডার্স অভিশংসন প্রস্তাবনা হেসে উড়িয়ে দেন। তিনি বলেন, ‘এর মতো রাজনৈতিক খেলা আর হতে পারে না, এটা সম্পূর্ণ হাস্যকর এবং বাজে।’ সূত্র: আনাদুলু এজেন্সি

ব্রাজিলের সাবেক প্রেসিডেন্টকে কারাদণ্ড

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: দুর্নীতির মামলায় ব্রাজিলের সাবেক প্রেসিডেন্ট লুই ইনাসিও লুলা দা সিলভাকে সাড়ে নয় বছরের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় সময় আজ বৃহস্পতিবার ব্রাজিলের একটি আদালত এ দণ্ড দেন। খবর : বিবিসির আদালতের সাজার পরও একটি আপিলের নিষ্পত্তি না হওয়ায় আপাতত কারাগারে যেতে হচ্ছে না লুলাকে। আদালতের বিচারক সার্জিও মোরে রায়ে বলেন, প্রকৌশল প্রতিষ্ঠান ওএএস এসএর কাছ থেকে ঘুষ হিসেবে ৩৭ লাখ টাকা নেন লুলা। ব্রাজিলের রাষ্ট্রীয় তেল কোম্পানি পেত্রোলিও ব্রাসিলিইরোর একটি কাজের ঠিকাদারি পাইয়ে দিতে প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে লুলাকে এই অর্থ দেওয়া হয়েছিল। অবশ্য রায়ের পর লুলার আইনজীবীরা ই-মেইলে পাঠানো এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, সাবেক প্রেসিডেন্ট নির্দোষ এবং এ বিষয়ে তারা আপিল করবেন। ২০০৩ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২০১১ সালের একই সময় পর্যন্ত ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট ছিলেন লুলা। এই সময়কালে ব্রাজিলে অসমতা কমানোয় সারা বিশ্বে প্রশংসিত হন সাবেক এই শ্রমিক নেতা। ব্রাজিলে আগামী বছর অনুষ্ঠেয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন লুলা। কিন্তু এর আগে আদালতে দোষী সাব্যস্ত হওয়া তার প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বড় ধরনের ধাক্কা বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

সৌদিতে অগ্নিকাণ্ডে বাংলাদেশিসহ ১১ শ্রমিক নিহত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: সৌদি আরবের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের নাজরান প্রদেশে অগ্নিকাণ্ডে অন্তত ১১ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। নিহতদের সবাই ভারত এবং বাংলাদেশি প্রবাসী শ্রমিক। তবে এদের মধ্যে কতজন বাংলাদেশি সে বিষয়ে কোনো তথ্য জানা যায়নি। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আহত হয়েছে আরো কমপক্ষে ৬ জন। বুধবার স্থানীয় সময় ভোর ৪ টার দিকে দেশটির নাজরানে একটি জানালাবিহীন বাড়িতে ওই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। নাজরান সিভিল ডিফেন্স কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, অগ্নিনির্বাপনকর্মীরা একটি পুরনো বাড়ির আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে। বাড়িতে বাতাস চলাচলের জন্য কোনো জানালা ছিল না। ভবনটিতে দমবন্ধ হয়ে ১১ জন নিহত হয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছে আরো ছয়জন। অগ্নিকাণ্ডে হতাহতরা সবাই ভারত এবং বাংলাদেশি প্রবাসী শ্রমিক। নিহতদের নাম পরিচয় জানা যায়নি। ঘটনা তদন্তে একটি কমিটি গঠন করার কথা ঘোষণা করেছেন প্রদেশিক গভর্নর প্রিন্স জেলুবি বিন আবডেল আজিজ বিন মুসায়েদ। কমিটিতে মিউনিসিপালটি, দমকল বাহিনী, শ্রম মন্ত্রণালয় ও সমাজ কল্যাণ বিভাগের কর্মকর্তারা রাখা হবে বলে জানান প্রদেশিক গভর্নর। এদিকে, একই দিনে তাবুকের একটি ফার্মে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। ১০ হাজার বর্গমিটার আয়তনের ওই ফার্মের আগুন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা নিয়ন্ত্রণে এনেছে। তাবুকের মুখপাত্র লেফট্যানেন্ট হুসাম আল মাসুদি বার্তাসংস্থা এএফপিকে বলেন, কর্তৃপক্ষ এ ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে। তবে এতে কেউ হতাহত হয়নি। সূত্র : আরব নিউজ

যুক্তরাষ্ট্রে সামরিক বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ১৬

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: যুক্তরাষ্ট্রের মিসিসিপিতে একটি সামরিক বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ১৬ জন নিহত হয়েছে। মিসিসিপির লেফ্লোর কাউন্টির জরুরী ব্যবস্থাপনা বিভাগের পরিচালক ফ্রেড র‌্যান্ডল জানান, নিহত ১৬ জনই বিমানে ছিলেন এবং মেরিন কোরের ওই বিমানের কোনও আরোহী বেঁচে নেই। মেরিন কোর এক টুইটার বার্তায় সোমবার বিকেলে বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনার উল্লেখ করেছে। সিএনএনের খবরে বলা হয়, নৌবাহিনীর কেসি-১৩০ উড়োজাহাজটি সয়াবিন খেতে বিধ্বস্ত হয়। এ সময় আকাশে ধোঁয়ার কুণ্ডলী দেখা যায়। ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তারা বলছেন, বিধ্বস্তের পর উড়োজাহাজটির ধ্বংসাবশেষ প্রায় পাঁচ মাইল এলাকাজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। প্রাথমিকভাবে জেট ফুয়েল থেকে আগুন ধরে যাওয়ায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সূত্র : সিএনএন

পশ্চিমবঙ্গে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গায় মদদ দিচ্ছে বাংলাদেশ : মমতা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: রাজ্যের উত্তর চব্বিশ পরগণা জেলার বশিরহাট ও বাদুড়িয়ায় সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার ঘটনায় বাংলাদেশিদের মদদ রয়েছে বলে জানিয়েছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। শনিবার পশ্চিমবঙ্গের মুখ্য প্রশাসনিক ভবন ‘নবান্নে’ এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন মমতা। এনডিটিভির খবরে জানানো হয়- ফেসবুকে মহানবী (সা.)-কে নিয়ে এক যুবকের একটি আপত্তিকর পোস্টের কারণে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। মমতা বলেন, ‘ওই এলাকার অশান্তিতে বাংলাদেশ থেকে আসা লোকজনের মদদ রয়েছে বলে আমি খবর পেয়েছি। বাংলাদেশ থেকে আসা এই অনুপ্রবেশকারীদের সঙ্গে বিজেপির সম্পর্ক খুব ভালো। কোনো এক সংবাদমাধ্যমে বশিরহাটের ঘটনা হিসেবে বাংলাদেশের কুমিল্লার একটি ভিডিও ফুটেজ প্রচার করা হয়েছে। এমনকি ফেসবুকেও ভোজপুরি চলচ্চিত্রের দৃশ্য নিয়ে ভুল প্রচার করা হচ্ছে।’ পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বশিরহাট ও বাদুড়িয়ার ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে। বাংলা একটি স্পর্শকাতর জায়গা। এই পশ্চিমবঙ্গের সঙ্গে বাংলাদেশ, ভুটান ও নেপালের সীমান্ত রয়েছে। পশ্চিমবঙ্গ লাগোয়া সিকিমের সঙ্গে রয়েছে চীনের সীমান্ত। ফলে, পরিকল্পিতভাবে পশ্চিমবঙ্গে অশান্তি তৈরির চক্রান্ত করা হচ্ছে।’ বশিরহাট-বাদুড়িয়ার ঘটনা পূর্বপরিকল্পিত দাবি করে মমতা জানান, ‘বশিরহাট ও বাদুড়িয়াতে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে প্ররোচণা দেয়া হয়েছে। তা সত্ত্বেও সেখানের মানুষ ওই প্ররোচণায় পা দেননি। এজন্য তাদের ধন্যবাদ। বশিরহাটে তৃণমূলের পার্টি অফিসে ভাংচুরের ঘটনায় মমতা ভারতের রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘকেও (আরএসএস) কাঠগড়ায় দাঁড় করান। আরএসএসের দুর্গাবাহিনীকে কটাক্ষ করেন। নারীদের বন্দুক চালানো শেখানো নিয়েও প্রশ্ন তোলেন মমতা। পাশাপাশি দার্জিলিং পরিস্থিতি নিয়েও কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, এক মাস হয়ে গেল দার্জিলিং শান্ত হয়নি। কেন্দ্রের কাছে সিআরপিএফ বাহিনী চাওয়া সত্ত্বেও তারা তা দেয়নি। পাহাড়ের জনজীবন এখনও শান্ত হয়নি, এখনও স্কুল-কলেজ বন্ধ। কেন্দ্র সরকারের উদ্দেশে মমতা বলেন, ‘পাহাড়ের ছেলেমেয়েদের পড়াশোনা করতে দিন। পাহাড়ে খাবার পাঠান।’ এ সময় পাহাড়ের রাজনৈতিক দলগুলোকে শান্তির পথে ফিরে আসার বার্তাও দেন তিনি।

তৃতীয় লিঙ্গের জয়ীতা এখন বিচারক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: ভারতে এবার একজন রূপান্তরকামী বিচারক হয়েছে। চার বছর আগেও তার থাকার জায়গা ছিল না। বিহার ও বাংলাদেশ সীমাবর্তী ইসলামপুরের হোটেল থেকে ধাক্কা দিয়ে বের করে দেওয়া হয়েছিল জয়িতা মণ্ডলকে। সেই জয়িতা মহকুমা লোক আদালতে বিচারক হয়েছেন। ইসলামপুরেই সমাজকর্মী হিসেবে কাজ করার সুবাদে স্থানীয় প্রশাসনে তাকে এ পদে নিয়োগ দিয়েছেন। শরীরে পুরুষ, মনে নারী ২৯ বছরের জয়িতা। কয়েক বছর আগে কলকাতায় নেতাজি নগরের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার হয়ে এইচআইভি সচেতনতার কাজ করতে করতেই তার প্রথমবার ইসলামপুরে যাওয়া। প্রান্তিক এলাকায় তৃতীয় লিঙ্গ তথা হিজড়ে, রূপান্তরকামীদের জন্য কাজের ইচ্ছেটা তখনই আরও জোরালো হয়ে ওঠে। ২০১৪ সালে সুপ্রিম কোর্টের নালসা রায়ে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের কাজ করা বা সামাজিক মর্যাদার অধিকার স্বীকৃতি পাওয়ায় জয়িতাদের লড়াই কিছুটা মসৃণ হয়েছে। রাজ্য প্রশাসন ট্রান্সজেন্ডার উন্নয়ন বোর্ড গড়ে তুলেছে। ইসলামপুরে ১৯৭ জন ট্রান্সজেন্ডারকে নিয়ে কাজ করছেন জয়িতা। তার চেষ্টাতেই সেখানে কেন্দ্রীয় রোগী কল্যাণ সমিতি প্রকল্প বা সরকারি বৃদ্ধাবাস সামলাচ্ছেন রূপান্তরকামীরা। প্রশাসনের সাহায্যে হাতের কাজ, বিউটিশিয়ান, সেলাইয়ের কাজও শেখানো হচ্ছে অনেককে। জয়িতার কথায়, ‘এতদিন আইনি লড়াই লড়তে কোর্টে গিয়েছি। এবার নিজেই বিচারকের ভূমিকায় থাকবো।’

ট্রাম্পকে রাজি করাতে পারলেন না বিশ্বনেতারা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: যুক্তরাষ্ট্রের আপত্তি সত্ত্বেও প্যারিস জলবায়ু চুক্তি বাস্তবায়নে নতুন করে নিজেদের প্রতিশ্রুতির কথা জানিয়েছেন শিল্পোন্নত দেশগুলোর সংগঠন জি-২০’র ১৯ দেশের নেতারা। তবে এই চুক্তিতে একমতে আসতে ট্রাম্পকে রাজি করাতে পারেননি তারা। জার্মানির হামবুর্গ শহরে অনুষ্ঠিত ওই সম্মেলনের শেষ দিনে জলবায়ু ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের বিরোধিতা অচলাবস্থা সৃষ্টি করলেও শেষ পর্যন্ত একটি চুক্তিতে সম্মত হয়েছেন রাষ্ট্রনেতারা। চূড়ান্ত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্যারিস চুক্তির প্রতি অন্য দেশগুলোর অঙ্গীকার বাধাগ্রস্ত না করেই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার দেশকে প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। আয়োজক শহর হামবুর্গে সহিংস বিক্ষোভের মুখে এ সমঝোতায় আসল অংশগ্রহণকারী ১৯ দেশ। শনিবার সম্মেলনের যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্যারিস চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রের বেরিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্তটি আমরা আমলে নিয়েছি। অবশ্য জি-২০ সম্মেলনের নেতারা প্যারিস চুক্তি অনুসারে জি-টুয়েন্টি সদস্যরা বৈশ্বিক তাপমাত্রা কমিয়ে আনার বিষয়টিকে অপরিবর্তনীয় বলে উল্লেখ করেছেন। সম্মেলনের সমাপনী সংবাদ সম্মেলনে জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মেরকেল জানান, প্যারিস চুক্তি নিয়ে ট্রাম্পের অবস্থানকে তিনি এখনও নিন্দা জানান এবং অপর ১৯টি দেশ যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থানের বিরোধিতা করায় তিনি সন্তুষ্ট। জলবায়ু চুক্তি নিয়ে বিভেদ উঠে আসলেও বাণিজ্য নীতি নিয়ে একমত হয়েছেন সদস্য দেশগুলোর নেতারা। সবগুলো দেশই সংরক্ষণবাদের বিরুদ্ধে কথা বলেছে। প্রসঙ্গত, জলবায়ু পরিবর্তন রোধে ২০১৫ সালে ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে জলবায়ু পরিবর্তন রোধে একটি চুক্তি করে জাতিসংঘভুক্ত দেশগুলো। এ বিষয়ে এটাই প্রথম কোনো সমন্বিত চুক্তি। এতে বৈশ্বিক উষ্ণতা দুই ডিগ্রি সেলসিয়াস কমিয়ে আনার কথা বলা হয়েছে। আর এই লক্ষ্যে চুক্তিবদ্ধ দেশগুলো চুক্তিতে কার্বন নিঃস্বরণের মাত্রা কমিয়ে আনার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছে। ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে এই চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। তবে ওই চুক্তি মানতে নারাজ বর্তমান মার্কিন প্রশাসন। নীতিগতভাবে রিপাবলিকান দল জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়টি স্বীকার করতে চায় না। এর আগে ট্রাম্প একে ‘ভাওতাবাজি’ বলে আখ্যায়িত করেছেন। অথচ জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য সবচেয়ে বেশি দায়ী শিল্পোন্নত দেশগুলো। তারাই সবচেয়ে বেশি কার্বন-ডাই-অক্সাইড নিঃস্বরণ করে। আর এর জন্য ভুক্তভোগী তৃতীয় বিশ্বের অনুন্নত দেশগুলো। বিশ্বের মোট কার্বন নিঃস্বরণের ৫৫ শতাংশের জন্য দায়ী এই ৫৫ দেশ। পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর গ্রিন হাউস গ্যাস নিঃস্বরণে চীনের পর দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সম্প্রতি এক গবেষণায় বিজ্ঞানীরা জানান, বর্তমানে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বৈশ্বিক উষ্ণতা বেড়ে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে ২১০০ সালের মধ্যে বিশ্বের শহরগুলোর তাপমাত্রা আট ডিগ্রি সেলসিয়াস (১৪ দশমিক ৪ ডিগ্রি ফারেনহাইট) পর্যন্ত বেড়ে যাবে বলে। এই শতকের শেষ নাগাদ সবচেয়ে জনবহুল শহরগুলোর মধ্যে শীর্ষ ২৫টি শহরে বাড়বে এই তাপমাত্রা, যার মধ্যে আছে ঢাকাও। জনসংখ্যায় বর্তমানে এর বৈশ্বিক অবস্থান ১১তম। বিজ্ঞানীরা আরও জানান, বিশ্বের মোট ভূখণ্ডের মাত্র এক শতাংশ জায়গা দখল করে থাকা শহরগুলো বিশ্বের মোট পণ্যের ৮০ শতাংশ উৎপাদন করে এবং মোট জ্বালানির ৭৮ শতাংশ ভোগ করে। কয়লা, তেল গ্যাস এবং অন্যান্য জ্বালানি পুড়িয়ে বিশ্বের মোট ৬০ শতাংশ কার্বন-ডাই-অক্সাইড নিঃস্বরণ করে তারা।

প্রধান সংবাদ


সর্বশেষ সংবাদ

রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব দেওয়ার অনুরোধ জাতিসংঘের

কাতারকে চ্যালেঞ্জ করা ছাড়া উপায় নেই : সৌদি আরব

জিজ্ঞাসাবাদের মুখে মরিয়ম নেওয়াজ

যুক্তরাজ্যে সন্ত্রাসবাদে অর্থ যোগানদাতা সৌদি আরব!

ভারত মহাসাগরে সাবমেরিন নামালো চীন

ফের ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়ল উত্তর কোরিয়া

‘মহাকাশ বাহিনী’ গড়তে যাচ্ছে আমেরিকা

আরও ৪৮ ঘণ্টা সময় পেল কাতার

মোদিকে ট্রাম্পের বিরল সম্মান


আজকের সব সংবাদ

সম্পাদক : মো. আলম হোসেন
প্রকাশনায় : এ. লতিফ চ্যারিটেবল ফাউন্ডেশন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়:
সরদার নিকেতন
হাসনাবাদ, দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ, ঢাকা-১৩১১।

ফোন: ০২-৭৪৫১৯৬১
মুঠোফোন: ০১৭৭১৯৬২৩৯৬, ০১৭১৭০৩৪০৯৯
ইমেইল: ekantho24@gmail.com