সোমবার, ০১ Jun ২০২০, ১১:১৯ অপরাহ্ন

কেরানীগঞ্জে দুই ডাকাত দলের বন্ধুকযুদ্ধে নিহত ১

কেরানীগঞ্জ(ঢাকা)প্রতিনিধি::

ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জে শুভাঢ্যা চিতাখলা এলাকায় শুক্রবার গভীর রাতে দুই দল ডাকাতের মধ্যে বন্ধুকযুদ্ধে এক ডাকাত নিহত হয়েছে। নিহত যুবক ইকুরিয়া পূর্বপাড়া এলাকার ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসী মাদক সম্রাট নান্টু আল-আমীন ও কাঠাল আলামীনের সহযোগী বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। তবে নিহত ডাকাতের পরিচয় পায়নি পুলিশ। ঘটনাস্থল থেকে একটি চাপাতি উদ্ধার করা হয়েছে। স্থানীয়রা ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসী নান্টু আল-আমীন ও কাঠাল আলামীনের ভয়ে মুখ খুলছেনা বলে পুলিশ জানিয়েছেন। রাতে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

চিতাখোলা এলাকার বাসিন্দা মনির হোসেন ও আলম মিয়া বলেন, শুভাঢ্যা ইউনিয়নে হাসনাবাদ ও ইকুরিয়া পূর্বপাড়া এলাকায় একটি ডাকাত দলের গ্রুপ রয়েছে। তারা রাতে ডাকাতি ও দিনে মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। তাদের রয়েছে একটি সন্ত্রাসী বাহিনী। ওই বাহিনীর দলে কমপক্ষে অর্ধশত সন্ত্রাসী রয়েছে। শুক্রবার গভীর রাতে শুভাঢ্যা ইউনিয়নে চিতাখোলা ও বাঘৈর সংযোগ সড়কের পাশে একটি জঙ্গলের ভিতর কতিপয় ডাকাত গোলাগুলি করে। কমপক্ষে ১৫ মিনিট থেমে থেমে গোলাগুলি হয়। গুলির শব্দে আশপাশের লোকজনের ঘুম ভেঙ্গে যায়। ঘটনাটি দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানা পুলিশকে জানানো হয়। গোলাগুলির খবর পেয়ে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক জাবেদ পারভেজ একদল পুলিশ নিয়ে চিতাখোলা এলাকায় যায়। এসময় পুলিশ কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে। ডাকাতরা পুলিশের টের পেয়ে এলাকা ত্যাগ করে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করে। তবে নান্টু আল-আমীনের গ্রুপের সন্ত্রাসী বাহিনীর কোন এক সদস্য আটক করলে পাওয়া যাবে সকল তথ্য।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ শাহজামান বলেন, শুভাঢ্যা ইউনিয়নের চিতাখলা এলাকায় দুই দল ডাকাতদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এক পর্যায়ে দুই ডাকাত দলের সঙ্গে গুলিবিনিময়ের ঘটনা হয়। এই বিষয়টি স্থানীয় লোকজন থানা পুলিশকে খবর দেয়। গোলাগুলির খবর পেয়ে টহলরত পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে ১০ রাউন্ড শর্টগানের ফাঁকা গুলি উদ্ধার করে। এসময় ডাকাত দল ছত্র ভঙ্গ হয়ে পালিয়ে যায়। আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে এক ডাকাতের লাশ উদ্ধার করি। লাশের বুকে ও কোমরে গুলির চিহ্ন ছিল। লাশের মুখে মুখোশ পড়া ও কোমরে প্লাষ্টিকের রশি দ্বারা স্যান্ডেল বাধা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। ডাকাত দলের নিজেদের কোন্দলের কারনে গোলাগুলির ঘটনা হতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

এব্যাপারে ঢাকা জেলা মিডিয়া উইয়ংয়ের কর্মকর্তা ওসি শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের বলেন, দুই দল ডাকাত দলের সঙ্গে বন্ধুকযুদ্ধে এক ডাকাত নিহত হয়েছে। ডাকাতের পরিচয় পাওয়া যায়নি। ডাকাতির পাশাপাশি তারা মাদকের সঙ্গে জড়িত রয়েছে বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

© All rights reserved © 2020  E-Kantha24
Design & Developed By Aynan